জার্নালিজম এন্ড ইনফরমেশন
টেকনোলজি ফাউন্ডেশন
সরকার নিবন্ধিত নং- S-13382

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা

সাংবাদিকতা একটি মুক্ত পেশা।বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতার ক্যারিয়ার বেশ উজ্জল। এই বিষয়ের মাধ্যমে সৃজনশীল কাজে নিজেকে যুক্ত করা। অত্যন্ত বৈচিত্র্যপূর্ণ এই বিষয়টি নিজেকে সৃষ্টিশীল হিসাবে গড়ে তোলে। প্রতিষ্ঠিত-স্বীকৃত ও সামনের সারির সংবাদমাধ্যমগুলোতে বরাবরই এই বিভাগের শিক্ষার্থীদের কদর তুলনামূলকভাবে বেশি। আমাদের দেশে দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে প্রিন্ট মিডিয়া ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংখ্যা। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা সহজেই এসব মিডিয়ায় তাদের প্লাটফর্ম তৈরি করার সুযোগ পাচ্ছে।এ বিভাগের বর্তমান ও সাবেক অনেক শিক্ষার্থীই দেশের প্রথম সারির দৈনিক পত্রিকায়, বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে, রেডিও ও টেলিভিশনে ফুলটাইম কিংবা পার্টটাইম কাজ করছে। অনেকে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে ফিচার-প্রবন্ধ-প্রতিবেদন লিখছে বিভিন্ন গণমাধ্যমে। অডিও-ভিডিও-টেক্সটে চমৎকার কনটেন্ট তৈরি করে নিজেকে পরিচিত করার সুবর্ণ সুযোগ পাচ্ছে।

যারা লিখতে ভালোবাসে, মিডিয়ায় ও জনসংযোগে ক্যারিয়ার গড়তে চায় তাদের জন্য গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা হতে পারে অত্যন্ত প্রিয় একটি বিষয়। অন্য বিষয় পড়েও মিডিয়ায় ক্যারিয়ার গড়া গেলেও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতার শিক্ষার্থীরা তাদের থেকে অনেকটা এগিয়ে থাকে। মিডিয়ায় ক্যারিয়ার গড়া ছাড়াও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ব্যাংক ও ইন্সুরেন্সে গণসংযোগ কর্মকর্তা, সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে পাবলিক রিলেশনে অফিসার, বিদেশে স্কলারশিপ ও উচ্চশিক্ষার সুযোগ, দেশি-বিদেশি এনজিও, মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানি, পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা, ব্যাংকের চাকরি সহ বিসিএস ক্যাডার হওয়ার সুযোগ  রয়েছে। পাশাপাশি ফটোগ্রাফি, সিনেমাটোগ্রাফি, মেকআপ এ কর্মসংস্থানের সুযোগ রয়েছে। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিষয়টি হতে পারে দেশের বেকারত্ব পূরণের প্লাটফর্ম।

Scroll to Top